পরকালীন প্রস্তুতি

কুর'আন-সুন্নাহর আলোকে পরকালীন মুক্তির আশায় একটি পরকালমুখী উদ্যোগ

হাদীসে জীবরিল

হযরত ওমর (রা.) সূত্রে বর্ণিত। তিনি বলেন; একদা আমরা রাসূলে কারীম (সা.) এর দরবারে বসা ছিলাম। এমতাবস্থায় সাদা ধবধবে পোশাক পরিহিত ও মিশকালো কেশধারী একব্যক্তি আমাদের মাঝে আবির্ভূত হল। তার উপর না ভ্রমণের কোন লক্ষণ পরিলক্ষিত হচ্ছিল , আর না আমাদের মাঝে কেউ আদৌ তাকে চিনতো! তিনি রাসূলে কারীম (সা.) এর কাছে গিয়ে নিজের হাঁটু তাঁর হাঁটুর সঙ্গে মিলিয়ে বসলেন, এবং নিজের হাত রাসূলে কারীম (সা.) এর উরুতে রেখে বললেন; হে মুহাম্মাদ! আমাকে ইসলাম সম্পর্কে বলুন। উত্তরে রাসূলে কারীম (সা.) বললেন; ইসলাম হচ্ছে; এই যে-
"তুমি সাক্ষ্য দাও যে, আল্লাহ ব্যতীত আর কোন উপাস্য নেই, মুহাম্মাদ (সা.) আল্লাহর রাসূল; নামাজ প্রতিষ্ঠা কর, যাকাত প্রদান কর, রমযানের রোযা রাখ, এবং সামর্থ থাকলে তবে আল্লাহর ঘরে হজ্জ কর।"

তিনি (আগন্তুক ব্যক্তি) বললেন; আপনি ঠিক বলেছেন।

হযরত ওমর বলেন তাঁর প্রতি আমরা বিস্মিত হলাম এই জন্য যে, তিনি নিজেই প্রশ্ন করছেন আবার নিজেই জবাবে ঠিক বলে ঘোষণা করছেন। তিনি (আগন্তুক ব্যক্তি) বললেন; এবার আমাকে ঈমান সম্পর্কে বলুন! জবাবে রাসূলে কারীম (সা.) বলেন; ঈমান হচ্ছে এই যে-

আল্লাহ, তাঁর ফেরেশ্তাগণ, তাঁর কিতাবসমূহ, তাঁর রাসূলগণ ও আখিরাতের উপর বিশ্বাস রাখা এবং তকদীর তথা ভাগ্যে ভালো-মন্দকে বিশ্বাস করা।

তিনি (আগন্তুক ব্যক্তি) বললেন আপনি ঠিক বলেছেন।

আগন্তুক বললো এবার আমাকে ইহসান সম্পর্কে বলুন! জবাবে রাসূলে কারীম (সা.) বলেন; ইহসান হচ্ছে এই যে-

তুমি এমনভাবে আল্লাহর ইবাদত করবে যেন তুমি তাঁকে দেখতে পাচ্ছ, আর যদি তুমি তাঁকে দেখতে না পাও, তবে তিনি তোমাকে দেখছেন, এই বিশ্বাস রাখ।

আগন্তুক বললো এবার আমাকে কিয়ামত সম্পর্কে বলুন! জবাবে রাসূলে কারীম (সা.) বলেন; এই বিষয়ে প্রশ্নকৃত ব্যক্তি প্রশ্নকারী অপেক্ষা অধিক অবগত নয়। আগন্তুক বললো তবে তার নিদর্শনগুলি সম্পর্কে আমাকে বলুন! জবাবে রাসূলে কারীম (সা.) বলেন; তা হচ্ছে এই-

দাসী-বাঁদীরা নিজ নিজ মনিবকে প্রসব করবে। এবং জুতা বিহীন ও বিবস্ত্র গরীব রাখালরা উঁচু উঁচু অট্যালিকা তৈরী করতে নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতা করবে। হযরত ওমর (রা.) বলেন; অতঃপর আগন্তুক চলে যায় আর আমি কিছুক্ষণ বসে থাকি, তখন রাসূলে কারীম (সা.) আমাকে বলেন; হে ওমর! প্রশ্নকারী কে ছিলেন তুমি জান কি? আমি বললাম আল্লাহ ও তাঁর রাসূল অধিক ভাল জানেন। রাসূলে কারীম (সা.) বললেন; তিনি ছিলেন জিবরাঈল, তোমাদেরকে দ্বীন শিক্ষা দিতে এসে ছিলেন।

তথ্যসূত্র: সহীহ মুসলিম

কোন মন্তব্য নেই