পরকালীন প্রস্তুতি

কুর'আন-সুন্নাহর আলোকে পরকালীন মুক্তির আশায় একটি পরকালমুখী উদ্যোগ

কুরআনে কি পর্বতরাজি সম্পর্কে অবৈজ্ঞানিক তথ্য আছে?


#নাস্তিক_প্রশ্নঃ পর্বতরাজি কি আসলেই ভুমিকম্প প্রতিরোধ করে বা পৃথিবীকে কম্পন থেকে রক্ষা করে (Quran 16:15, 21:31, 31:10, 79: 32-33) ? তবে বিজ্ঞান কেন ভিন্ন কথা বলে?
.
কুরান অনুসারে, আল্লাহ পৃথিবীর ওপর পর্বতরাজিকে স্থাপন করেছেন বা পেরেকের মত গুজে দিয়েছেন (Quran 16:15, 15:19, 41:10, 50:7, 78:6-7) ! কিন্তু বিজ্ঞান কেন বলে পর্বত তৈরি হয় lithospheric plate এর গতির ফলে?
.
উত্তরঃ একটি বই, নাম তার Earth (পৃথিবী)। বইটি পৃথিবীর বহু বিশ্ববিদ্যালয়ের মৌলিক রেফারেন্স হিসেবে স্বীকৃত। “প্রফেসর ফ্রাঙ্ক প্রেস” বইটির রচয়িতাদের অন্যতম। তিনি ছিলেন আমেরিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টারের বিজ্ঞান-বিষয়ক উপদেষ্টা। পরবর্তীতে ১২ বছর তিনি ছিলেন ওয়াশিংটনের জাতীয় বিজ্ঞান অ্যাকাডেমি প্রধানের দায়িত্বে। এই গ্রন্থে উল্লেখ করা হয়েছে যে, পাহাড়ের নিচে শিকড় রয়েছে।
[Earth, Press and Siever, পৃ. ৪৩৫. আরও দেখুন, Earth Science, Tarbuck, and Lutgens, পৃ. ১৫৭।]
.
আর শিকড়গুলো মাটির অত্যন্ত গভীর পর্যন্ত বিস্তৃত। এই শিকড়গুলো দেখতে অনেকটা পেরেকের মতই।
[দেখুন: ১,২,৩ নং চিত্র। চিত্রগুলো পর্যায়ক্রমে কমেন্টে দেয়া হল]
.
এভাবেই আল্লাহ তা‘আলা পবিত্র কুরআনে পাহাড়ের কথা বর্ণনা করেছেন। আল্লাহ বলেন:
.
অর্থাৎ “আমি কি জমিনকে বিছানা এবং পাহাড়কে পেরেকের মত করি নি?”
(আল-কুরআন, সূরা আন-নাবা: ৬-৭)
.
আধুনিক ভূ-তত্ত্ব বিজ্ঞান প্রমাণ করেছে যে, জমিনের নিচে পাহাড়ের রয়েছে গভীর শিকড়। (৩ নং চিত্র দেখুন) সে শিকড়গুলো সমতল ভূমি থেকে পাহাড়ের যে উচ্চতা তার কয়েকগুণ পর্যন্ত হতে পারে।
[The Geological Concept of Mountains in the Qur’an, আল-নাজ্জার, পৃষ্ঠা-৫।]
.
তাই, পাহাড়ের গুণাবলি বর্ণনা করতে গিয়ে “পেরেক” শব্দ ব্যবহার করাই উত্তম। কারণ, পেরেকের প্রায় সবটুকুই জমিনের ভিতর লুকিয়ে থাকে। বিজ্ঞানের ইতিহাস থেকে জানা যায় যে, পাহাড়ের এ পেরেক সংক্রান্ত তথ্যগুলো ১৮৬৫ সালে জ্যোতির্বিদ “স্যার জর্জ আইরি” র মাধ্যমে সর্বপ্রথম জানা গেছে। [Earth, Press and Siever, p. 435. আরও দেখুন, The Geological Concept of Mountains in the Qur’an, p. 5.]
.
ভূ-পৃষ্ঠকে স্থির রাখার পিছনে পাহাড়ের উল্লেখযোগ্য অবদান রয়েছে। পাহাড় ভূ-কম্পন রোধে ভূমিকা রাখে।
[The Geological Concept of Mountains in the Qur’an, p. 44-45.]
.
আল্লাহ তা‘আলা বলেন:
.
অর্থাৎ “আর তিনি পৃথিবীর উপর সুদৃঢ় পর্বত স্থাপন করেছেন যেন কখনো তা তোমাদেরকে নিয়ে হেলে দুলে না পড়ে এবং নদী ও পথ তৈরি করেছেন যাতে তোমরা সঠিক পথ প্রদর্শিত হতে পার।” (আল-কুরআন, সূরা আন-নাহল: ১৫)
.
সম্প্রতি টেকটোনিক প্লেট (Tectonic plate) গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, পাহাড় পৃথিবীকে স্থির রাখার ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এই ধারণাটা মাত্রই বিংশ শতাব্দীর ৬০-এর দশকে টেকটোনিক প্লেটের (Tectonic plate) উপর গবেষণার আগে জানা যায় নি।
[The Geological Concept of Mountains in the Qur’an, p. 5.]
.
মুহাম্মদ(ﷺ) এর যুগে কোনো ব্যক্তির পক্ষে কি সম্ভব ছিল পাহাড়ের গঠন সম্বন্ধে জানার?! কারও পক্ষে কি এটা কল্পনা করা সম্ভব ছিল যে, তাদের চোখের সম্মুখস্থ সুদৃঢ় এ পাহাড় মাটির গভীর পর্যন্ত তার শিকড় বিস্তৃত করে রেখেছে? পাহাড়ের গভীর শিকড় রয়েছে তা আজকের বিজ্ঞানীরা প্রমাণ করেছে। আজকের ভূ-তত্ত্ব প্রমাণ করেছে যে, কুরআনে বর্ণিত উক্ত বিষয় সত্য।
.
কাজেই আমরা দেখতে পাচ্ছি যে, নাস্তিক-মুক্তমনারা যে তথ্যকে "বৈজ্ঞানিক ভুল"(!) বলার চেষ্টা করেছে তা আসলে কুরআনের বৈজ্ঞানিক মিরাকল।
এবং আল্লাহ ভালো জানেন।
.
[কৃতজ্ঞতা স্বীকারঃ ইসলামের সচিত্র গাইড; মূলঃ আই. এ. ইবরাহীম; বঙ্গানুবাদ: মুহাম্মদ ইসমাইল জাবীহুল্লাহ । ডাউনলোড লিঙ্কঃ goo.gl/OiwRI0 ]
==============================
লেখকঃ মুহাম্মাদ মুশফিকুর রাহমান মিনার

অফিসিয়াল ওয়েব সাইট ঃ shottokothon.com  এবং response-to-anti-islam.com

ফেসবুক পেজঃ fb.com/shottokothon1

কোন মন্তব্য নেই