পরকালীন প্রস্তুতি

কুর'আন-সুন্নাহর আলোকে পরকালীন মুক্তির আশায় একটি পরকালমুখী উদ্যোগ

ভুলে যাওয়া কতিপয় সুন্নাহ


অসিয়তনামা লেখা

ইবনু উমার রাদি. থেকে বর্ণীত, রসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, কোন অসিয়ত বাকি থাকা অবস্থায় কোন মুসলিমের জন্য দুটি রাত যাপন করা উচিৎ নয়। (মুত্তাফাক আলাইহি)

তাওবার সময় সদাকাহ করা

কা’ব বিন মালিক রাদিয়াল্লাহু আনহু বললেন, হে আল্লাহ্'র রসূল! আমি তাওবা স্বরূপ আমার সব মাল-সম্পদ আল্লাহ্ ও তাঁর রসূলের পথে সদাকাহ করব। আল্লাহ'র রসূল বললেন, কিছু মাল তোমার কাছে রেখে দেয়া অধিক উত্তম হবে। (মুত্তাফাক আলাইহি)
(গ্রহণযোগ্য অপারগতা ছাড়া এক জিহাদে অংশ না-নেয়া অপরাধের তাওবা স্বরূপ তিনি এমনটি বেলছিলেন)

তাওবার সালাত পড়া

আবু বাকর রাদি. থেকে বর্ণীত, রসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বেলছেন, কোন ব্যক্তি কোন গোনাহ করে ফেলে অতঃপর যেয়ে পবিত্র হয়ে সালাত আদায় করে, আল্লাহ্‌র কাছে ইস্তেগফার করে, আল্লাহ্‌ তাকে ক্ষমা করে দেন। (আবু দাউদ, তিরমিযী, সহীহ)

নতুন বৃষ্টিতে ভেজা

আনাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, আমরা আল্লাহ্র রসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সহ বৃষ্টির মধ্যে পড়লাম। রসূল সল্লালালহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম জামা খুলে ফেললেন আর তাঁর শরীর বৃষ্টিতে ভিজল। (মুসলিম)
ইমাম নববী বলেনঃ এই হাদিস আমাদের সাথীদের মতের পক্ষে দলীল, নতুন বৃষ্টির সময় সতর ছাড়া বাকি কাপড় খুলে ফেলা মুস্তাহাব, যাতে শরীরে বৃষ্টি পড়ে। ( শারহু মুসলিম, ৬/১৯৬)

নেয়ামত এলে বা বিপদ গেলে সেজদা করা

ইবনুল কাইয়্যিম রহ. বলেন, রসূল সলাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ও তাঁর সাহাবীগণের একটি পথ নির্দেশিকা ছিল, কোন আনন্দদায়ক নেয়ামত পেলে অথবা কোন বিপদ কেটে গেলে শুকরিয়ার সিজদা করা। (যাদুল মা’আদ)

মজলিশে অধিক পরিমাণ ইস্তেগফার করা

আমরা গণনা করতাম, আল্লাহ্র রসূল এক মজলিশে একশবার বলতেন, رب اغفر لي، وتب عليَّ، إنَّك أنت التَّواب الرَّحيم (হে আমার রব! আমাকে ক্ষমা করুন, আমার মাফ করুন, নিশ্চয় আপনি ক্ষমাকারী ও দয়ালু)। (আবু দাউদ, তিরমিজী,সহীহ)

খাবার পর আঙ্গুল চেটে খাওয়া

ইবনু আব্বাস রাদি. থেকে বর্ণীত, রসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, তোমাদের কেউ খাবার খেলে সে নিজে চেটে খাওয়ার পূর্বে বা অন্য কাউকে খাওয়ানোর পূর্বে যেন হাত মুছে না ফেলে। (মুত্তাফাক আলাইহি)

দুধ পানের পর কুলি করা

ইবনু আব্বাস রাদি. থেকে বর্ণীত, রসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম দুধ পান করলেন অতঃপর কুলি করে বললেন, ইহা তৈলাক্ত। (মুত্তাফাক আলাইহি)

দুধ পানের দোয়া পড়া

রসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বেলছেন, … আল্লাহ্ যাকে দুধ পান করায় সে যেন বলে- اللهمَّ بارك لنا فيه وزدنا منه (হে আল্লাহ্ আপনি এর মাঝে বরকত দিন এবং আমাদেরকে আরও বৃদ্ধি করে দিন) (মুসনাদে আহমাদ, তিরমিজী, হাসান)

পড়ে যাওয়া খাবার তুলে খাওয়া

রসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, তোমাদের কারো খাবারের লোকমা পড়ে গেলে সে যেন তা তুলে নেয়। অতঃপর তাতে ক্ষতিকর কিছু থাকলে পরিষ্কার করে ও খেয়ে নেয়। শয়তানের জন্য ছেঁড়ে না রাখে।…… (সহীহ মুসলিম)

খাবার পাত্র চেটে খাওয়া

আনাস রাদিয়াল্লহু আনহু বলেন, ------ রসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাদেরকে খাবার পাত্র চেটে খেতে নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বেলছেন, কারণ, তোমরা জাননা, তোমাদের খাবারের কোন অংশে বারাকাহা আছে। (সহিহ মুসলিম)

সাহরিতে খেজুর খাওয়া

রসূল সলাল্লালহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, মুমিনের জন্য খেজুর দিয়ে সাহরি কতই না উত্তম বিষয়। (আবু দাউদ- সহীহ)

তিন শ্বাসে পান করা, শ্বাস বাইরে ফেলা

আনাস বিন মালিক রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণীত, রসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পান করার মাঝে তিনবার শ্বাস নিতেন।  (মুত্তাফাক আলাইহি)

আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণীত, রসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, তোমাদের কেউ পান করলে পাত্রের মাঝে যেন শ্বাস না ফেলে। যদি পুনরায় পান করতে চায় পাত্র যেন সরিয়ে নেয়, অতঃপর চাইলে পুনরায় পান করে। (ইবনু মাজাহ, হাসান)

Collected from:  Brother Mahdi Mabrur

1 টি মন্তব্য: