পরকালীন প্রস্তুতি

কুর'আন-সুন্নাহর আলোকে পরকালীন মুক্তির আশায় একটি পরকালমুখী উদ্যোগ

ইস্তেখারাহ কি? এর ফযীলত ও কার্যকারিতা সম্পর্কে জানতে চাই। কোন কোন ক্ষেত্রে ইস্তেখারাহ করা যায়?

উত্তর:
ইস্তিখারাহ ঐ ছালাতকে বলা হয়, যার মাধ্যমে দোদুল্যমান বিষয়ে আল্লাহর নিকটে ফয়ছালা কামনা করা হয়। যে বিষয়ের পরিণতি সম্পর্কে বান্দা অজ্ঞাত, এর মাধ্যমে সে বিষয়ে সঠিক সিদ্ধান্তের ইঙ্গিত পাওয়া যায়। জাবের বিন আব্দুল্লাহ (রাঃ) বলেন, রাসূল (ছাঃ) আমাদেরকে সকল বিষয়ে ইস্তিখারাহ করার শিক্ষা দিতেন, যেভাবে তিনি কুরআনের সূরাসমূহ শিক্ষা দিতেন (বুখারী হা/৬৩৮২)।

ইস্তিখারাহ সকল কর্মকান্ডে সফলতা অর্জনের সর্বোত্তম উপায়। এর মাধ্যমে মানুষ নিজেকে কেবল আল্লাহর উপর সঁপে দেয়। অতঃপর তাঁর সিদ্ধান্তের উপর সন্তুষ্ট হয়। বস্ত্ততঃ এ দু’টি বিষয়ের উপরেই মানুষের হৃদয়ের প্রশান্তি নির্ভর করে এবং এদু’টিই হ’ল তার সৌভাগ্যের সোপান। বান্দা যখন পূর্ণ ঈমানের সাথে কোন বিষয়ে আল্লাহর সাহায্য প্রার্থনা করে, তাতে তিনি সাড়া দেন। তাই ইস্তিখারাকে কেবল গুরুত্বপূর্ণ ও স্বল্প পরিসরের মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে সকল দোদুল্যমান বিষয়ে পূর্ণ আস্থার সাথে ইস্তিখারাহ করা বান্দার জন্য কর্তব্য।

কোন মন্তব্য নেই