Ticker

6/recent/ticker-posts

Advertisement

পর্ন আসক্তি : কীভাবে ছাড়বেন?



ভাইয়েরা, যারা পর্ন আসক্তি নিয়ে বেশ কঠিন সময় পাড় করছেন, আজকের লেখাটা আপনাদের জন্যই।


পর্ন দেখা একটা নেশা। মাদক আমাদের ব্রেনের যে জায়গাগুলোকে উত্তেজিত করে, পর্নও তা-ই। প্রচুর ডোপামিনের খেলা। কিন্তু আমার মতে, মাদকের মতোই পর্ন ছেড়ে দিতে চাইলাম, আর দিয়ে দিলাম, ব্যাপারটা এমন না হবার সম্ভাবনাই বেশি। কয়েক স্তরবিশিষ্ট প্রতিরক্ষাব্যবস্থা নেওয়া চাই। কিছু জিনিস ছাড়তে হবে, আর মজার কিছু খোরাকও ব্রেনকে দিতে হবে। পর্ন যে-পরিমাণ ডোপামিন নিঃসরণ করতো, ঐ পরিমাণ ডোপামিন আপনাকে বিকল্পপথে সরবরাহ করতে হবে।


১) ব্যক্তিগত আচার

👉🏻 পেশাব-পায়খানা-গোসল সম্পূর্ণ উলঙ্গ হয়ে না করা—যদিও তা জায়েজ, কিন্তু আল্লাহকে লজ্জা করার একটি অভ্যাস তৈরির জন্য করবো। একান্ত প্রয়োজনের সময় আল্লাহকে লজ্জা করা অভ্যাস হলে, গুনাহের সময়ও লজ্জা চলে আসবে।

👉🏻 নিজ লজ্জাস্থানের দিকে না তাকানো, অপ্রয়োজনে স্পর্শ না করা। উসমান রা. লজ্জাস্থানের দিকে তাকাতেন না। শয়তানের ধোঁকা আসতে পারে। প্লাস লজ্জার প্র্যাকটিস। কোলবালিশ ব্যবহার না করা। ঘর্ষণে কামভাব জাগতে পারে।


২) আদাবুল ইন্টারনেট

📵 বিছানায় শুয়ে মোবাইলে নেট ইউজ করবো না, বসে করবো।

📵 অহেতুক ইন্টারনেট ব্রাউজ করবো না। অহেতুক ফেসবুক স্ক্রল করবো না।

📵 রাত ১০টার পর নেটের সাথে কোনো সম্পর্ক রাখবো না।

📵 একাকী যখন থাকবো, তখন নেট ব্যবহার করবো না। সবার সামনে করবো।


৩) সামান্য ছিদ্র

ধরুন, আপনি খুব ডিটারমাইন্ড হয় এসপার নয় ওসপার : আর পর্ন দেখবো না, হস্তমৈথুন করবো না। আপনার প্রতিজ্ঞায় কোনো খুঁত নেই। কিন্তু ফেসবুক স্ক্রল করতে করতে হঠাৎ সুন্দরী কোনো মেয়ের ছবি চলে এলো, বা ফ্যাশনের পেজের কোনো মডেল চলে এলো, তেমন উগ্র পোশাকও না, আপনি কিছুক্ষণ দেখলেন—আপনার প্রতিরোধব্যবস্থায় একটি ছিদ্র তৈরি হলো। এই ছিদ্র বড় হতে থাকবে সারা দিন ধরে, একপর্যায়ে অঘটন ঘটে যাবে। খুব খেয়াল করে দেখবেন, যে-দিন অঘটন ঘটেছে, সে-দিন হয় এমন কিছু দেখেছেন—


🔴 বা কোনো গান-নাচ দেখেছেন,

🔴 বা সিনেমা,

🔴 বা পোস্টার চোখে পড়েছে, আপনি চোখ না সরিয়ে একটু দেখেছেন,

🔴 কিংবা কোনো পথচারী মেয়েকে একটু দেখেছেন।

🔴 বা কোনো ফরজ বা সুন্নাত সালাত ইচ্ছে করে ছুটেছে,

🔴 বা রোজানা করেন, এমন কোনো নফল আমল অলসতা করে বাদ দিয়েছেন—ইচ্ছে করে।


মানে, ‘আল্লাহর স্মরণ’ হলো ব্যারিকেড; এই ব্যারিকেডে যে-কোনো সামান্য ছিদ্রের সুযোগটা শয়তান নেবে। ঐ ছিদ্র দিয়ে নফসকে একটা খোঁচা দিয়ে জাগাবে। বাকিটুকু নফসেই করে নেবে। অতএব গাফেল থাকা যাবে না—গান শোনা-নাটক-সিনেমার অভ্যাস বাদ দিতে না-পারলে পর্ন-হস্তমৈথুন ছাড়ার চিন্তাও বাদ দিন।


'কুররাতু আইয়ুন' ২ থেকে নেওয়া।

লেখক: ডা. শামসুল আরেফীন

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ