পরকালীন প্রস্তুতি

কুর'আন-সুন্নাহর আলোকে পরকালীন মুক্তির আশায় একটি পরকালমুখী উদ্যোগ

আল্লাহর নিকট দেওয়া ওয়াদা : ধোঁকা দেওয়ার সুযোগ নেই

ইবনে আব্বাস (রা) হতে বর্ণিত । রাসূল (সা) বলেছেন-

"আল্লাহ আদাম (আ) কে সৃষ্টির পর আরাফার তারিখে নামান নামক স্থানে তার থেকে একটি অঙ্গীকার গ্রহণ করলেন । তারপর পৃথিবীর শেষমুহূর্ত পর্যন্ত তার যে সকল ভবিষ্যত বংশধর জন্মগ্রহণ করবে তাদেরকে প্রজন্মের পর প্রজন্ম আকারে বের করলেন ।

এরপর তাদের থেকে স্বীকারোক্তি আদায়ের জন্য তাদেরকে তাঁর সামনে ছড়িয়ে দিলেন । তিনি তাদের সাথে সরসরি কথা বললেন: আমি কি তোমাদের রব নই ?

তারা সকলেই উত্তর দিলো, হ্যাঁ, আমরা সাক্ষ্য দিলাম ।

এরপর আল্লাহ ব্যাখ্যা করলেন, কেন তিনি সমগ্র মানবজাতির থেকে এই সাক্ষ্য নিলেন যে, তিনিই তাদের স্রষ্টা এবং প্রভু । তিনি বললেন, তোমাদের থেকে এজন্যই সাক্ষ্য গ্রহণ করা হলো যেন, তোমরা কিয়ামতের দিন বলতে না পারো যে, 'আমরা এসব কিছু জানতাম না; আমরা জানতাম না যে, আপনিই ইলাহ, আমাদের রব; কেউ আমাদের বলেন নি যে, আমাদেরকে শুধুমাত্র আপনারই ইবাদাত করতে হবে' ।

আল্লাহ আরো ব্যাখ্যা করলেন যে, এটা এ কারণেও যেন মানুষ না বলেঃ 'আমাদের পূর্বপুরুষরাই (আল্লাহর সাথে) শির্ক করেছিলো, আর আমরা তো ছিলাম কেবল তাদের উত্তরসূরী; ওইসব বাতিলপন্থীরা যা করেছিল সেজন্য কি আমাদের ধ্বংস করে দিবেন ?"

- সূরা আল-আরাফ এর ১৭২-১৭৩ নং আয়াতের ব্যাখ্যা; মুসনাদে আহমাদ; আস-সহীহাঃ ১৬২৩

শিক্ষাঃ আপনি পৃথিবীতে আসার পূর্বেই আল্লাহর আনুগত্য করার ওয়াদা দিয়ে এসেছেন । তাই পৃথিবীতে আল্লাহর দেওয়া বিধান উপেক্ষা করার কোন সুযোগ নেই । যদিও এটা আপনার চারপাশের বিপরীতে হয় । (নিশচয়ই আল্লাহ এই বিষয়ে সর্বাধিক জ্ঞান রাখেন)

কোন মন্তব্য নেই