পরকালীন প্রস্তুতি

কুর'আন-সুন্নাহর আলোকে পরকালীন মুক্তির আশায় একটি পরকালমুখী উদ্যোগ

প্রশ্ন যখন আক্বীদা বিষয়ক, উত্তর তখন দিতেই হয়:

প্রশ্ন : শোনা যায় রাসূল (ছাঃ)-এর ছায়া ছিল না। এ বক্তব্য কতটুকু দলীল সম্মত?

উত্তর : রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) আমাদের মত মানুষ ছিলেন। অতএব তাঁর ছায়া থাকাই স্বাভাবিক। ছায়াহীন হওয়ার জন্য তাঁকে নূরের সৃষ্টি হওয়ার প্রয়োজন ছিল। অথচ আল্লাহ বলেন, হে নবী তুমি বলে দাও যে, ‘আমি তোমাদের মত একজন মানুষ মাত্র’ (কাহ্ফ ১৮/১১০)। অন্যত্র আল্লাহ বলেন, ‘(নবী) অন্য কিছুই নয়, বরং তোমাদের মতই একজন মানুষ। তোমরা যা খাও, সে তা খায়। তোমরা যা পান কর, সে তা পান করে’ (মুমিনূন ২৩/৩৩)। নবী করীম (ছাঃ) বলেন, ‘আমি যখন দ্বীন সম্পর্কে তোমাদের কোন নির্দেশ দেই, তখন তোমরা তা গ্রহণ কর। আর যখন আমার ‘রায়’ অনুযায়ী কোন কিছুর নির্দেশ দিই, তখন (মনে রেখ) আমি তোমাদের মত একজন মানুষ’ (মুসলিম হা/২৩৬২; মিশকাত হা/১৪৭)। অতএব তাঁর ছায়া না থাকার প্রশ্নই আসে না।


প্রশ্ন: রাসূলুল্লাহ (সাঃ) কি আল্লাহকে দেখেছেন?

উত্তরঃ জি, না। উনি কখনো আল্লাহ কে দেখেন নি, তবে উনি জীবরাঈল (আঃ) কে তার আসল চেহারায় দেখেছেন।

আয়িশাহ (রাঃ) হতে বর্নিত। তিনি বলেন, যে ব্যাক্তি মনে করবে যে, রাসূলুল্লাহ (সাঃ) তার রবকে দেখেছেন, সে ব্যাক্তি মহা ভুল করবে (মিথ্যা বলবে) । বরং তিনি জীবরাঈল (আঃ) কে তার আসল চেহারায় দেখেছেন। তিনি আকাশের দিকচক্রবাল জুড়ে অবস্থান করছিলেন। (বুখারিঃ৩২৩৪ ইঃফাঃ৩০০৪, মুসলিমঃ১৭৭ ইঃফাঃ৩৩৬)

কোন মন্তব্য নেই