পরকালীন প্রস্তুতি

কুর'আন-সুন্নাহর আলোকে পরকালীন মুক্তির আশায় একটি পরকালমুখী উদ্যোগ

গায়েবানা জানাজা কতটুকু ইসলাম সম্মত?

উত্তর :

যাবতীয় প্রশংসা আল্লাহর। দরুদ ও সালাম আল্লাহর রাসূল (সা) এর উপর। পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।

গায়েবানা জানাজা নিয়ে আলেমদের মধ্যে মতভেদ রয়েছে। ইমাম শাফীই (র) এবং ইমাম আহমদ ইবনে হাম্বল (রহঃ) এর নিকট গায়েবানা জানাযা জায়েজ। তাদের দলীল হল-রাসূলুল্লাহ (সা) হাবশার বাদশা নাজ্জাশীর গায়েবানা জানাযা পড়েছিলেন।

ইমাম আবু হানিফা (রহঃ) এর নিকট গায়েবানা জানাযা জায়েজ নাই। তাদের দলীলের উত্তরে তিনি বলেন, (কুদরতীভাবে) নাজ্জাশী বাদশাহর জানাযা রাসূলুল্লাহ (সা) এর জন্য স্পেশাল আমল ছিল অন্যদের জন্য প্রযোজ্য হবে না ।

যারা জায়েজ মানেন তাদের তিনটি মতামত রয়েছে।

প্রথমত, বিদেশে মারা গেলে তার নিজ শহরের মানুষ গায়েবানা জানাজা পড়তে পারবে যদিও তার জানাজা পড়া হয়ে থাকে। এটা হাম্বলী ও শাফিই মাযহাবের নিয়ম।

দ্বিতীয় মত, যদি মৃত ব্যক্তি মুসলিমদের মধ্যে জনপ্রিয় হন তার কর্মের মাধ্যমে যেমন ন্যায়পরায়ণ শাসক, আলেম, মুজাহিদ, বা কোন ধনী দানশীল ব্যক্তি যার মাধ্যমে অসংখ্য মানুষ উপকৃত হয়েছে তার গায়েবানা জানাজা পড়া যাবে। এটি ইমাম আহমাদের মত। এবং শায়খ আল সাদী এটি পছন্দ করেছেন।

তৃতীয় মত, যদি বিদেশে মৃত ব্যক্তির জানাজা তার মৃত্যুস্থানে না হয় তবে তার গায়েবনা জানাজা পড়বে । যদি ওই দেশে জানাজা পড়ানো হয় তবে আর গায়েবানা জানাজা পড়বে না । এটিও ইমাম আহমাদের মত । এবং ইমাম ইবনে তাইমিয়া, ইবনে কাইয়ুম ও ইবনে উসাইমিন (র)ও এই মতকে পছন্দ করেছেন। আর এটিই অধিক গ্রহণযোগ্য মত আলেমদের নিকট।

সর্বোপরি আল্লাহই ভাল জানেন।

তথ্যসূত্র
Islam QA
Islam Web

কোন মন্তব্য নেই