পরকালীন প্রস্তুতি

কুর'আন-সুন্নাহর আলোকে পরকালীন মুক্তির আশায় একটি পরকালমুখী উদ্যোগ

জীবন থেকে নেয়া

  • চরম একাকীত্বের সময়গুলো অভিশাপ বা কষ্টের নয় বরং সৃষ্টিকর্তার পক্ষ থেকে তাঁর নৈকট্য লাভের জন্য প্রদত্ত বিশেষ সুযোগ, শর্ত একটাই জ্ঞানের গভীরতা। গভীরতা যত বেশি সে মুহূর্তগুলো থেকে অবর্ণনীয় স্বাদার্জনের সুযোগ তত বেশি।
  • বিপদের (আপেক্ষিক) সময়ে সৃষ্টিকর্তার কথা যে অনুপাতে স্মরণ করা হয় তা যদি স্বাভাবিক সময়সমূহে করা হত তাহলে জীবনে জেনে-বুঝে কোন পাপ কাজে লিপ্ত হবার সাহস হত না।
  • যারা আল্লাহ’র উপর ভরসা করতে জানে আল্লাহ তাদের ফিনানসিয়াল্লি, ইকনোমিকাল্লি সবদিক থেকে রক্ষা করেন।
  • যারা আল্লাহের উপরে ভরসা করতে জানে না তাদের জীবনের সকল অর্জন মূল্যহীন।
  • শেস নিঃশ্বাসের আগ পর্যন্ত প্রতি মুহূর্তই আল্লাহর তরফ থেকে পাওয়া অমূল্য সুযোগ তাঁর দিকে ফিরে আসার।
  • যে বিপদের ঊর্ধ্বে নিজেকে নিতে পেরেছে তার জন্য তা সৃষ্টিকর্তার সান্নিধ্য/নৈকট্য লাভের সুযোগ, যা অন্যদের কাছে বিপদ হিসাবে প্রতীয়মান।
  • জীবন থেকে যে জ্ঞান অর্জন করা হয় তা ওজনে ভারি হয়।
  • মানুষের জীবনে কোন হায়-হাপিত্যেশ থাকত না যদি তারা সত্যিকার অর্থে স্রষ্টার উপর ভরসা করতে জানত।
  • জ্ঞানার্জন সহজ কিন্তু সে অর্জিত জ্ঞানের উপর অটল থাকা কঠিন।
  • নিজেকে দুঃখী ভাবার কোন সুযোগ থাকে না যদি আশে-পাশে থাকা অন্যদের কষ্টের দিকে চোখ মেলে তাকানোর ইচ্ছা থাকে।
  • চোখের দৃষ্টি না থাকার অন্ধত্ব অভিশাপ নয়, বরং অভিশাপ হল অন্তরের দৃষ্টি নিভিয়ে ফেলার কারনে যখন তা সত্যের প্রতি সাড়া দানে অক্ষম হয়।
  • যে মুসলিম মৃত্যুকে এই কারনে ভয় পায় যে তাকে এই সুন্দর পৃথিবী ছেড়ে চলে যেতে হবে তার ইসলামিক জ্ঞানের কোঠা শূন্য।


Writer: RAHAT BIN ISLAM

1 টি মন্তব্য: