সন্তান নেয়ার সঠিক বয়স কত?


৩০ বছর বয়সের পরে মেয়েদের উর্বরতার পতন শুরু হয়, ৩৫ এ গিয়ে পতনের গতি বেড়ে যায়। মায়ো ক্লিনিকের পরিসংখ্যান অনুসারে, সর্বোচ্চ উর্বরতার সময়কাল ২০ থেকে ৩০ বছর। ৩০ বছর বয়সের পরে উর্বরতা ২০% কমে, ৩৫ পর ৫০% কমে, এবং ৪০ বছর বয়সের পরে ৯৫%। ২৮ বছর বয়সি নারীদের মধ্যে ৭২%, এবং ৩৮ বছর বয়সিদের মাত্র ২৪%, এক বছর চেষ্টা করার পর গর্ভবতী হয়।


বয়সের সাথে উর্বরতার এই দ্রুত পতনের কথা শুনে অনেকেই প্রচণ্ড ধাক্কা খায়। ডায়ান অ্যারন্সন আমাকে এই ব্যাপারে বলেন, ‘আমি আপনাকে বলে শেষ করতে পারব না যে, আমাদের হেল্পলাইনে কত মানুষ ফোন করে কাঁদতে কাঁদতে বলেছে যে, তাদের কোনো ধারণাই ছিল না যে, বয়স বাড়ার সাথে সাথে উর্বরতা এতটা কমে যায়’। ডায়ান হলো RESOLVE নামক একটি সহায়তা নেটওয়ার্কের একজন প্রাক্তন নির্বাহী পরিচালক। এই নেটওয়ার্কটি বন্ধ্যাত্ব এবং সন্তান হারানোর বেদনায় জর্জরিত নারী এবং পুরুষদের সহায়তা দেয়৷


‘এই ব্যাপারটা সবাইকে জানানো উচিত যে বয়সের সাথে সন্তান জন্ম দেওয়া অনেক বেশি কঠিন হয়ে যায়।’


মূল সমস্যা হলো নারীদের ডিম্বাণু ফুরিয়ে যাওয়া। প্রতিটি মেয়ে শিশু তার দুটো ডিম্বাশয়ে তার সারা জীবনের ডিম্বাণুর সরবরাহ (কয়েক লক্ষ) নিয়ে জন্মায়। বয়ঃসন্ধির পর থেকে মাসে একবার করে তার যেকোনো একটি ডিম্বাশয় একটি ডিম ছাড়ে, এবং এভাবে সরবরাহ ধীরে ধীরে কমতে থাকে। অবশেষে মেনোপজে পৌঁছে তার সরবরাহ পুরোপুরি ফুরিয়ে যায়।


নিউইয়র্ক প্রেসবিটারিয়ান মেডিকেল সেন্টারের ক্লিনিক্যাল প্রসূতি ও গাইনোকোলজির সহকারী অধ্যাপক ডক্টর ক্রিস্টিনা মাতেরার ভাষায়, ‘[বয়স্ক] নারীরা যা বোঝেন না, তা হলো—যদিও তারা এখনো সুন্দরী আছেন এবং প্রাণবন্ত জীবন-যাপন করছেন, তবুও তাদের ডিম্বাশয়ের বয়স থেমে নেই।’


লেখক : সিলভিয়া এন হিউলেট

বই : সফলতার কান্না

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন